ACL Surgery Cost In India

ACL Surgery সম্পর্কিত কিছু কথা

ACL (Anterior Cruciate Ligament) অর্থ্যাৎ আমরা পায়ের সেই লিগামেন্ট -এর কথা বলছি যা আমাদের হাঁটুকে সচল রাখতে সাহায্য করে থাকে| এটি পায়ের উপরের ও নিচের অংশের হাঁড়ের গঠন একসাথে রাখতে সহযোগিতা করে থাকে| অনেক সময় অনেক বেশি চাপের ফলে আমাদের লিগামেন্টের ক্ষতি হতে পারে অনেক সময় এটি ছিঁড়েও যেতে পারে আবার কখনো কখনো কোনো কারণে এটি তার সঠিক জায়গা থেকে সরে গিয়ে থাকে| এইগুলি বেশিরভাগ হয়ে থাকে ফুটবল খেলার সময় যদি কখনো ভুলভাবে লাফ দেওয়া হয়ে থাকে তার ফলে| তবে দেখা গিয়েছে মহিলাদের মধ্যে এই সমস্যা অনেক বেশি দেখা যাচ্ছে বর্তমানে|

ACL reconstruction surgery বা লিগামেন্ট পুনর্নির্মাণ সার্জারি এইরকম সময় করা হয়ে থাকে যখন লিগামেন্টের কোনো বিশেষ ক্ষতি হয়ে থাকে, সাথে ধারাবাহিক কোনো চিকিৎসা এই ক্ষেত্রে কোনো কাজে দেয় না| উদাহরণ হিসাবে বলা যায় যখন লিগামেন্ট সম্পূর্ণ ভাবে ফেটে যায় তখন সার্জন কিছু ছোট ছোট ছেদ করে তার মধ্যে সার্জিক্যাল ইনস্ট্রুমেন্ট দেয় সাথে অৰ্থোস্কোপ করে| যখন এই ধরণের লিগামেন্ট ছিঁড়ে গিয়ে থাকে তখন কিন্তু অস্ত্রপ্রচার আবশ্যক হয়ে যায়| এই বিষয়ে আপনি এখানে অনেক কিছু জানতে পারবেন| যার মধ্যে রয়েছে কিভাবে একজন বিশেষজ্ঞ সার্জনকে দিয়ে আপনার সার্জারি করবেন যা আপনার অস্ত্রোপ্রচারকে সফল করবে সহজেই|

ACL পুনর্নির্মাণ অস্ত্রপ্রচারের সময় প্রথমে ক্ষতিগ্রস্ত লিগামেন্ট কে বাদ দিয়ে তার জায়গায় নতুন টিস্যু দেওয়া হয়, এটি রোগীর শরীরের কোনো অংশ থেকেই নেওয়া হয়ে থাকে প্রয়োজন অনুসারে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে  কাঁধের থেকে নেওয়া হয়ে থাকে|

এরপরেই চিকিৎসক যেটি পরীক্ষা করে দেখেন সেটি হলো এই যে আপনার দুটি হাঁটুই ভার গ্রহণের জন্য সক্ষম কিনা| সাথে হাঁটুর সঠিক ভাবে বাঁকানো যাচ্ছে কিনা বা একসাথে স্থিতিশীল রাখতে কোনো সমস্যা হচ্ছে কিনা সেটিও একবার পরীক্ষা করে দেখা হয়| এর পরেই ডাক্তার সেলাই করে থাকেন| এরপর রোগীকে কিছুদিন হাসপাতালে রাখা হয় এইসময় সাথে বরফ জলের ব্যান্ডেজ দেওয়া হয় যাতে কোনোরকম ফোলা বা ব্যাথা না হয়| এর পরেই আসে ফিজিওথেরাপির বিষয়টি, একজন ফিজিওথেরাপিস্ট এরপর রোগীকে একটি নির্দিষ্ট নিয়ম ও সময় অনুযায়ী কিছু ব্যায়াম দিয়ে থাকে, মনে রাখতে হবে যে এই প্রক্রিয়াটি রোগীকে তার সাধারণ জীবন যাপনে ফেরাতে সব চেয়ে বেশি সহায়তা করে থাকে তাই এই ব্যায়ামগুলো পুরোপুরি রুটিন অনুযায়ী সাথে সাবধানভাবে করা খুবই প্রয়োজন|

প্রতিস্থাপনের জন্য ডাক্তার যে শিরাগুলি নিয়ে থাকে সেগুলি লিগমেলাইজেশন মধ্যে দিয়ে তারপর তা রোগীর শরীরে প্রতিস্থাপন করা হয়ে থাকে| এটি মূলত করা হয় এইকারণে যাতে ওই লিগামেন্ট প্রতিস্থাপনটি বিশেষভাবে ও সঠিকভাবে রোগীর শরীরে কাজ করে থাকে|

এই সময় হাঁটুকে মজবুত করতে প্রতিদিন নির্দিষ্ট ব্যয়ামের তালিকা থাকতে পারে| ব্যয়াম আপনার গতিশীলতা, ভারসাম্য, হাঁটুর পেশী এবং সাধারণভাবে হাঁটার সামগ্রিক ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে| এই সময় অস্ত্রোপচারের  পরে অনেক সময় হাঁটু একটু শক্ত হয়ে যায় তাই এইসময় পেনকিলার নেওয়া কিন্তু অতি আবশ্যক|

বিশ্রামের সময় অনেক ক্ষেত্রে রোগীদের নিজেদের দুটি পা-কেই উঠিয়ে রাখতে হতে পারে| অর্থ্যাৎ কোনো কিছুর উপর উঁচু ভাবে রাখা| অস্ত্রোপচারের দু সপ্তাহ পর ধীরে ধীরে হাঁটার জন্য অনেক সময় ক্রাচের সাহায্য নিয়ে চলতে হতে পারে| আপনি কত তাড়াতাড়ি আপনার কাজের জগৎ-এ প্রবেশ করতে পারবেন তা নির্ভর করছে আপনার কাজের ধরণের উপর, যদি আপনি বসে বসেই কাজ করেন বা কোনো ডেস্ক ওয়ার্ক করে থাকেন তাহলে আপনি দু সপ্তাহ পরেই কাজ শুরু করতে পারে| তবে যদি কেউ খেলার সঙ্গে যুক্ত থাকেন তাহলে তার ক্ষেত্রে অন্তত ছয় মাস বিশ্রাম ও ফিজিওথেরাপির পরই কাজে ফেরা উচিৎ|

Knee Immobilizer

৮টি জরুরী বিষয় জেনে রাখা প্রয়োজন ACL Surgery আগে:

  1. ডাক্তারের সাথে কথা বলুন
  2. এক্স-রে এমআরআই(MRI) করে নিন অবশ্যই
  3. একজন ভালো অর্থোপেডিকের সাথে যোগাযোগ করুন
  4. অস্ত্রোপচারের আগেই হাঁটুর ক্ষমতা সম্পর্তে ভালোভাবে যেন বুঝে নিন
  5. কি ধরণের ACL সার্জারি আপনি করতে চাইছে সেটা আপনি ভালো ভাবে বুঝে নিন
  6. এ বিষয়ে কত খরচ হবে সে বিষয়ে জানুন তার সাথে ওষুধ আর ফিজিওথেরাপির খরচ সম্পর্কেও ভালোভাবে জেনে নিন
  7. আপনার যদি স্বাস্থ্য বীমা করানো থাকে তাহলে তা সবচেয়ে ভালো হয়| বীমা কোম্পানির সাথে কথা বলে দেখুন তারা কত শতাংশ খরচ বহন করবে, বেশিরভাগ খেতে বীমা কোম্পানি যে খরচ বহন করে তা সার্জারির পুরো খরচ কখনোই হয় না সেটি সাহায্য মাত্র| বীমা কোম্পানির জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সবসময় আগে থেকেই তৈরী রাখুন ও তাঁদের সাথে কথা বলে নিন|
  8. আপনি খরচ ও সব কিছু সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে দেখুন যে আপনি ঠিক কোথায় অপারেশন করাবেন আর কোথায় করতে বেশি স্বছন্দ|

ACL Surgery খরচের কিছু কথা

 1. ACL Surgery আগের খরচ খরচা

ACL Surgery ক্ষেত্রে আপনাকে কিছু এইধরণের পরীক্ষা করতে হতে পারে যার তালিকা আমার নিচে দিলাম

আপনার সার্জন আপনাকে নিশ্চয়ই অপারেশনের আগে কিছু পরীক্ষা করার জন্য বলে থাকবে, এর মধ্যে বেশ কিছু টেস্ট আবশ্যক সমস্ত রোগীর ক্ষেত্রেই| তবে কিছু টেস্ট এই কারণে করতে হতে পারে যদি  অপারেশনের ক্ষেত্রে আপনার কোনো সমস্যার সম্ভাবনা থাকে|

  • শারীরিক পরীক্ষা
  • এমআরআই
  • রক্ত পরীক্ষা
  • বুকের এক্স – রে
  • কোয়জুলেশন টেস্ট
  • ইসিজি
  • এলএফটি

রোগীর ভিত্তিতেই কিছু পরীক্ষা প্রয়োজন হতে পারে না। প্রাক-অপারেশন পরীক্ষার জন্য গড় খরচ ৬০০০ থেকে ১৫০০০ এর মধ্যে হতে পারে।

2. ACL Surgery খরচ

নিম্নলিখিত এইগুলি সাধারণত অস্ত্রোপচার খরচের অন্তর্ভুক্ত

  • সার্জনের ফি
  • অ্যানেশথিটিক ফি
  • অপারেটিং থিয়েটার চার্জ
  • গ্রাফ্ট খরচ
  • গ্র্যাফ্ট স্থায়ী করার সামগ্রী খরচ
  • অ্যানাস্থেসিয়ার জন্য মেডিসিনস

3. ACL Surgery পরবর্তী খরচ

ACL  Surgery পর অন্তত দুদিন একজন রোগীকে হাসপাতালে থাকতেই হবে| এই সময়টিকে বলা হয় পোস্ট সার্জারি টাইম, মনে রাখতে হবে অস্ত্রপচারের পরে এই সময়টি হলো সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ| এই সময়ের খরচের মধ্যে প্রধানত ফিজিও থেরাপিস্টের খরচ ও ব্যথানাশক কিছু ওষুধের সঙ্গে অন্য কিছু ওষুধ থাকে| আসুন দেখে নি এর তালিকা –

  • ব্যথা কম করার মেডিসিন
  • ফিজিওথেরাপি অ্যাপয়েন্টমেন্ট
  • ড্রেসিং, ব্রেস, ক্রাচের খরচ
  • Surgery পর হাসপাতলে থাকার খরচ

ROM Knee Brace

ROM Knee Brace

ACL Surgery খরচের প্রকার

এই অভিজ্ঞতাটি অনেকেরই হয়ে থাকে তা হলো যে যখন কেউ আলাদা আলাদা হসপিটালে গিয়ে এই ধরণের অস্ত্রোপচারের খরচ সম্পর্কে জেনে থাকেন তখন আলাদা আলাদা খরচ মূল্য পেয়ে থাকেন| অনেক ক্ষত্রে এটি দেখে বিভ্রান্তির তৈরী করতে পারে কিন্তু এখানে জেনে রাখা প্রয়োজন যে আলাদা আলাদা হসপিটালে দামের রকম আলাদা আলাদা হয়ে থাকে এর পিছনে অনেক রকম কারণ থেকে থাকে| প্রধানত যেসব কারণ গুলি আমরা দেখে থাকি তার কিছু আলোচনা এখানে করা হলো|

ACL Surgery costs in India – ভারতে ACL Surgery খরচ মূল্য

ACL-Surgery

ভারতে ACL পুনর্নির্মাণের অস্ত্রোপচারের খরচ ৭৫,০০০ থেকে ১.৫ লক্ষের মধ্যে থাকে এবং আলাদা আলাদা  ধরন, সার্জন এবং সামগ্রীর গুণমান, গ্র্যাফ্ট ফিক্স করার পদ্ধতি, অন্যান্য সুবিধার সাথে বদল হয়ে থাকে। অস্ত্রোপচারের পর, ১৫,০০০  থেকে ২০,০০০  টাকা সার্জারি পর ফিজিওথেরাপি ও চিকিৎসার  জন্য ব্যয় করা যেতে পারে, যা তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে ওঠার ক্ষেত্রে বিশেষ সহায়তা করে থাকে|

কি ভাবে আপনি ACL Surgery খরচ ম্যানেজ করবেন?

সাধরণত অনেক ক্ষেত্রেই এই ধরণের অপারেশনের খরচ ব্যয়বহুল মনে করা হয়ে থাকে, কিন্তু কোনো ভাবেই আমরা গুণমান ও সফল ফলাফলের সাথে আপোষ করতে তৈরিও হই না, তাই আসুন জেনে নি এর বিকল্প কিছু সমাধান|

1. ব্যয়বহুল নয় এমন একজন অর্থোপেডিক সার্জন খোঁজ করুন

এমন বহু ডাক্তার আছেন যারা খুব অভিজ্ঞ এবং নির্দিষ্ট বিষয়ে পারদর্শী হবার সাথে সাথে খুব কম খরচেই অস্ত্রোপচার করে থাকেন| চেষ্টা করুন এই ধরণের বিশেষজ্ঞ একজন ডাক্তারের কাছে যেতে|

2. আপনার জন্য সঠিক এমন গ্র্যাফ্ট নির্বাচনের চেষ্টা করুন

একটি সঠিক ACL পুনঃপ্রতিস্হাপন অনেকগুলি বিষয়ের উপর নির্ভর করেই হয়ে থাকে যেমন বয়স, কার্যকরী চাহিদা সাথে কি ধরণের ব্যথা বা কতটা ব্যাথা হাঁটুতে রয়েছে| তাই সবার আগে আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে নিন কোনটা আপনার জন্য সব থেকে ভালো গ্র্যাফ্ট|

 3. অপ্রয়োজনীয় খরচ কম করুন

অনেক সময় আমরা ব্যক্তিগত ভাবে অনেক খরচ করে ফেলি যার ফলে খরচের তালিকা বড়ো হয়ে যায়| এ বিষয়ে লক্ষ্য রাখা দরকার যে হাসপাতালে আপনার নিজস্ব কামরা বা সবসময়ের নার্সের দরকার আদৌ আছে কিনা| মনে রাখা প্রয়োজন যে হাসপাতালের পরিবেশ ভালো হওয়াটাই বড় বিষয় পাঁচ তারা হোটেলের মতো বিলাস সে ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় না|

4. Surgery জন্য নিজেকে তৈরী করুন

Surgery জন্য নিজেকে মানসিক ভাবে সবার আগে তৈরী করুন| এর ফলে আপনার অস্ত্রপ্রচার অনেকটাই সফলতার দিকে এগিয়ে থাকবে| চেষ্টা করুন নিয়ন্ত্রণ বুঝে ও সাথে সুষম পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার| সাথে নিজের রক্তচাপ এর খেয়াল রাখুন ও ফিজিওথেরাপি করুন ডাক্তারের পরামর্শ মতো| আপনার যদি সুগার বা এই ধরণের সমস্যা থাকে তাহলে ধূমপান ছেড়ে দেওয়া আপনার পক্ষে সবচেয়ে  লাভদায়ক হতে পারে|

5. মেডিকেল বীমা

যদি কেউ মেডিকেল বীমা করিয়ে থাকেন তাহলে তাঁদের জন্য সুখবর এটাই যে এখন বহু মেডিকেল বীমা সংস্থা ACL অস্ত্রপ্রচারকে তাদের বীমার মধ্যে সংযোজন করেছে| তবে এই ধরণের বীমা যদি দুই থেকে তিন বছর আগে শুরু হয়ে থাকে তবেই তার সুবিধা পাওয়া যাবে|

এক্ষত্রে সবরকম দরকারি কাগজপত্র ও ডাক্তারের কাছ থেকে নেওয়া প্রেস্ক্রিপশন কাজে লাগতে পারে| তাই কি কি লাগবে তা আগেই জেনে রাখা ভালো|  আরো একটি কথা মনে রাখা প্রয়োজন যে মেডিকেল কোম্পানি গুলির দেওয়া খরচ কখনোই পুরো খরচ নয় তবে চিকিৎসার ক্ষেত্রে এটা অনেকটাই সহযোগিতা করে, এক কথায় বলতে গেলে বিপদের সময় এটি অনেক বড়ো সাহারা, তাই আগেই গোটা খরচের তালিকা তৈরী রাখুন|

উপসংহার

আপনার যন্ত্রনা মুক্ত জীবনের জন্য ACL অস্ত্রপ্রচার খুবই ভালো উপায়, শুধু একটু চোখ কান খোলা রেখে আর বুঝে শুনে চললেই গুনগত মানের সাথে আপোষ না করেই  হিসাবের খরচের মধ্যেই আপনি ভালো চিকিৎসা পাবেন ও স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে পারবেন| আরো জানার জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন আমাদের ইমেল  [email protected] অথবা +91-9640378378 নম্বরে WhatsApp -এ মেসেজ করুন|

আপনি যদি আপনার শহরে কোনো বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের খোঁজ করেও না পেয়ে থাকেন, তাহলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন|

ACL surgery in Bengali, ACL surgery Cost in Bengali, ACL Surgery Cost in India, ACL Repair, ACL injury

Leave a Review

How did you find the information presented in this article? Would you like us to add any other information? Help us improve by providing your rating and review comments. Thank you in advance!

Name
Email (Will be kept private)
Rating
Comments
ACL Surgery সম্পর্কিত কিছু কথা Overall rating: ☆☆☆☆☆ 0 based on 0 reviews
5 1

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।